ঢাকা বুধবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৮

Mountain View



ঘাটাইল উপজেলা পরিষদ ভাংচুর, শহীদুল ইসলাম লেবুসহ ৩৭ জনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা উপজেলা চেয়ারম্যানের

Print Friendly, PDF & Email

নিজস্ব প্রতিনিধি: ঘাটাইল উপজেলা আ’লীগের সাবেক আহবায়ক শহিদুল ইসলাম লেবু, ঘাটাইল জিবিজি কলেজের সাবেক ভিপি শহিদুজ্জামান খান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমসহ আ’লীগের ৩৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে। আ’লীগ সমর্থিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও ঘাটাইল উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক নজরুল ইসলাম খান সামু বাদী হয়ে রোববার দুপুরে টাঙ্গাইলের জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ঘাটাইল আমলী আদালতে তিনি আইন শৃঙ্গলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আইন ২০০(সংশোধিত)২০০৪ এর ৪/৫ ধারায় এ মামলা দায়ের করেন।

শহিদুল ইসলাম লেবু

আদালতের বিচারক লুনা ফেরদদৌস মামলাটি গ্রহন করে ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে মামলাটি এফআইআর ভুক্ত করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেছেন।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, গত ৩ আগষ্ট ঘাটাইল উপজেলা আ’লীগের সাবেক আহবায়ক শহিদুল ইসলাম লেবু ,ঘাটাইল জিবিজি কলেজের সাবেক ভিপি শহিদুজ্জামান খান, সন্ধানপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম, লিটন সরকার, রুবেল হোসেন,নাজিম উদ্দিন, নাছিম সহ উল্লেখিত আসামীরা ত্রাসের সৃষ্টি করে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আরিফ হোসেনের কক্ষে প্রবেশ করে অফিস কক্ষ ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে। তারা জাতির জনকের ছবি ও প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুর ও তছনছ করে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তারা মারাত্মক অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে এ হামলা চালায় বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।

সন্ত্রাসী হামলার সময় উপজেলা চেয়ারম্যান ১৫ আগষ্টের প্রস্তুতি সভায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ছিলেন এবং ভাইস চেয়ারম্যান অফিসে ছিলেন না। উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খান সামু বাদী হয়ে গতকাল রোববার দুপুরে টাঙ্গাইলের জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ঘাটাইল আমলী আদালতে এ মামলা দায়ের করলে বিচারক লুনা ফেরদদৌস মামলাটি গ্রহণ করে ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে মামলাটি এফআইআর ভুক্ত করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান অভিযোগ করেছেন এ ঘটনায় গত ৪ আগষ্ট থানায় মামলা দিতে গেলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামলাটি গ্রহণ করেননি ।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খান সামু এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ঘাটাইলে শহীদুল ইসলাম লেবু’র ইন্ধনে মামলায় উল্লেখিত আসামীরা আমার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যানের কক্ষে ব্যাপক ভাংচুর করে। পরবর্তীতে আমার অফিস কক্ষে ঢুকে হুমকি প্রদান করে লেবুর সন্ত্রাসীরা। এ বিষয়ে থানায় মামলা করতে গেলে থানা পুলিশ আমার মামলা নেয়নি। তাই বাধ্য হয়ে আদালতের সরণাপন্ন হয়েছি।

ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান জানান, মামলাটি এখনো থানায় আসেনি মামলাটি পেলে আদালতের নির্দেশনা অনুযাী ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

ফেসবুক মন্তব্য