ঢাকা শনিবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৮

Mountain View



স্পেশাল অলিম্পিকে দেশের ৭৯টি স্বর্ণের মধ্যে ১৮ টি টাঙ্গাইলের

Print Friendly, PDF & Email

মুহা. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : প্রতিবন্ধীদের নিয়ে আয়োজিত ‘স্পেশাল অলিম্পিক ওয়ার্ল্ড গেমস-২০১৫’তে বাংলাদেশী বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ক্রীড়াবিদরা ৭৯টি স্বর্ণ জিতেছে। এরমধ্যে ১৮ টি স্বর্ণই জিতেছে টাঙ্গাইলের দুই কৃতি ক্রীড়াবিদ।

Tangail-Sonmanna-Pic-01

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতার কয়েকটি ইভেন্টে অংশ নিয়ে বাংলাদেশের বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ক্রীড়াবিদদের দলের অন্যতম সদস্য টাঙ্গাইলের কৃতি ক্রীড়াবিদ আব্দুল কাদের স্মরণ সর্বোচ্চ ১০টি স্বর্ণ পদক জয় করে দেশের সর্বোচ্চ স্বর্ণ জয়ী নির্বাচিত হন। দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্বর্ণ পদক জয়ীও টাঙ্গাইলের মধুপুরের বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ক্রীড়াবিদ জাকিয়া সুলতানা। সে ৮টি স্বর্ণ পদক জয় করেন।

জানা যায়, আব্দুল কাদের স্মরণ সুইড বাংলাদেশ পরিচালিত টাঙ্গাইল বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। আর জাকিয়া সুলতানা মধুপুর বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

স্থানীয়রা জানান, বিশ্বের একাধিক দেশ জয়ের পর জাকিয়ার(১৬) পদক জয়ের মিশন এবার যুক্তরাষ্ট্রেও সফল হয়েছে। দ্বিতীয় বারের মতো স্পেশাল অলিম্পিকে যোগ দিয়েই ৮ টি স্বর্ণ পদক জিতেছে জাকিয়া।

আব্দুল কাদের স্মরণ ও জাকিয়া সুলতানার স্বর্ণ জয়ের খবরে টাঙ্গাইল ও মধুপুরে আনন্দের বন্যা বইছে। সেই সাথে এই দুই কৃতি ক্রিড়াবিদদের নিয়ে জেলাবাসীও গর্বিত।

মধুপুর বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয় সূত্র জানায়, মধুপুর পৌর শহরের বাসিন্দা শহিদুল ইসলাম মিন্টু এবং কনা বেগমের প্রথম সন্তান জাকিয়া জন্মগত বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। জাকিয়া ৮ বছর বয়সে ওই বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়। ভর্তি হওয়ার পর থেকে উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে প্রতিযোগীতায় অংশ নিয়ে বেশ কয়েকটি পদক জিতে জাকিয়া বিদ্যালয়ের সুনাম বয়ে নিয়ে এসেছে।

জাকিয়ার মা কনা বেগম জানান, ২০১৩ সালে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত স্পেশাল অলিম্পিকে অংশ নিয়ে বউচি খেলায় দলীয় ও এককভাবে জাকিয়া দু’টি স্বর্ণ পদক জয় করে দেশের মুখ উজ্জল করে। পরের বছর (২০১৪) ভারতে অনুষ্ঠিত কালচারাল প্রোগামে আমন্ত্রিত হয়ে জাকিয়াসহ দেশের প্রতিনিধিত্বকারী দল বেশ সুনাম বয়ে নিয়ে আসে। জাকিয়া ভারত থেকেও পদক চিহ্ন নিয়ে দেশ ও ঘরে ফেরে।

স্পেশাল অলিম্পিকে অংশ নিতে প্রস্তুতির জন্য তাদের দুই জনকেই সুইড বাংলাদেশ আয়োজিত ঢাকায় প্রায় ১ মাসের প্রশিক্ষণ নিতে হয়েছে। জাকিয়ার ইভেন্টে (বউচি খেলা) জাকিয়া দেশের মধ্যে প্রথম হয়েছে। তার সঙ্গে অপর এক মেয়েও যোগ দিয়েছিল।

গত ৯ আগস্ট(রোববার) টাঙ্গাইলের এই কৃতি দুই ক্রীড়াবিদকে সম্মাননা জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। এসময় টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব হোসেন, পুলিশ সুপার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর, সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ ইবনে সাঈদসহ জেলা প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

সম্মাননা অনুষ্ঠানে আব্দুল কাদের স্মরণ ও জাকিয়া সুলতানার পরিবারের সদস্যরাসহ সুইড বাংলাদেশের কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

ফেসবুক মন্তব্য