ঢাকা মঙ্গলবার, নভেম্বর ২০, ২০১৮

Mountain View



ভূঞাপুর পৌর এলাকায় অল্প বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতা, দুর্ভোগ চরমে

Print Friendly, PDF & Email

মো. রবিউল ইসলাম, ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর পৌরসভার কর বাড়লেও বাড়েনি নাগরিক সুবিধা। পৌর এলাকার ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও পানি নিস্কাশনের কোন ব্যবস্থা না করায় ড্রেনের ময়লা-আবর্জনায় জলাবদ্ধতা তৈরি হওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছে পৌরবাসী। সেই সঙ্গে শহরের ভিতর দিয়ে যাওয়া ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক সংস্কার কাজ না করার ফলে ভারী বৃষ্টিতে গর্তে পানি জমে খানাখন্দের তৈরি হওয়ায় দূর্ভোগ আরো বাড়িয়েছে।

bhuiyanpur

সরেজমিনে দেখা গেছে, হালকা বৃষ্টিতেই পৌর এলাকার সবক’টি রাস্তায় পানি জমে যায়। পৌরসভা কার্যালয়ের সামনে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কে ছোট ছোট তৈরি হওয়া খানাখন্দ গর্তে পরিনত হয়েছে। ড্রেন দিয়ে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় সড়কে সৃষ্ট হওয়া গর্তে পানি জমাট হওয়ায় যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। অন্যদিকে ঘাটান্দি নতুন পাড়া রাস্তায় ড্রেন থাকলেও পানি নিষ্কাশন না হওয়ায় অল্পবৃষ্টিতে রাস্তায় হাটু পানি ও বাসা-বাড়িতে উঠে পড়ে। ফলে ওই এলাকার সাধারন মানুষ বৃষ্টি হলেই পানি বন্দি হয়ে পড়ে। এছাড়া পৌর বাসস্ট্যান্ড হতে শিয়ালকোল, ঘাটান্দি, পুকুরিয়া রাস্তা, পৌর বাজারস্থ হতে বামনহাটা রাস্তা, স্লুইসগেট হতে বেতুয়া রাস্তা, থানা হতে হাসপাতাল হয়ে গণেশের মোড় রাস্তা, পৌরসভা কার্যালয় হতে পাঁচটিকড়ি রাস্তাসহ বিভিন্ন রাস্তার সংস্কার কাজ না করায় দূর্ভোগে পড়েছে পৌরবাসী।

জানা যায়, নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি লক্ষ্যে ১০.৯৫ বর্গ কিলোমিটার আয়তন নিয়ে ১৯৯৪ সালে ভূঞাপুর পৌরসভা গঠিত হয়। শুরুতে তৃতীয় শ্রেণির পৌরসভা হলেও ২০০৪ সালে এটি দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নত হলেও বাড়েনি নাগরিক সুবিধা। দিনদিন পৌর এলাকার জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে যানবাহনের সংখ্যা। সে তুলনায় রাস্তা সংস্কার ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা সচল না থাকায় পৌর এলাকার রাস্তা-ঘাট অল্প বৃষ্টিতেই তলিয়ে যাচ্ছে। অপরদিকে খাল ও পুকুর ভরাট করে অপরিকল্পিতভাবে বাসা-বাড়ি নির্মাণ করায় পৌরবাসীর কষ্ট দিনদিন বাড়ছে। পৌরএলাকার রাস্তা-ঘাট সংস্কার না করায় রাস্তার পিচ, পাথর ও সুরকী উঠে গিয়ে খানাখন্দে পরিণত হয়েছে।

ঘাটান্দি সোহেল রানা, আল আমিন শোভন, সৈয়দ সরোয়ার সাদী রাজু, সোহেল তালুকদারসহ অনেকেই জানান, বৃষ্টির পানিতে রাস্তা তলিয়ে বাসা-বাড়িতে পানি উঠে যায়। ফলে পানিবন্দি হয়ে পড়ে। বার বার পৌরসভার কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি লিখিত ও মৌখিকভাবে জানালেও কার্যত কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। রাস্তায় জমাট বাঁধা পানি দিয়ে হাটলে পানি বাহিত রোগে আক্রান্ত হতে হচ্ছে। স্কুল/কলেজে যেতে পাড়ছে না শিক্ষার্থীরা।

ভূঞাপুর পৌরসভার মেয়র মাসুদুল হক মাসুদ জানান, “ঘনঘন বৃষ্টি হওয়া ও সড়কে যানবাহনের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় রাস্তা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। পানি নিষ্কাশনের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। রাস্তায় তৈরি হওয়া খানাখন্দের সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।”

ফেসবুক মন্তব্য