ঢাকা মঙ্গলবার, নভেম্বর ২০, ২০১৮

Mountain View



মধুপুরে ডিবি পরিচয়ে ছিনতাই কালে ৪ ছিনতাইকারী আটক, জনরোষে পুলিশের ফাঁকা গুলি

Print Friendly, PDF & Email

এসএম সবুজ, মধুপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের মধুপুরে দিন দুপুরে ডিবি পুলিশের পরিচয়ে ছিনতাই কালে পালানোর সময় ৪ ছিনতাইকারী জনগণের হাতে ধৃত ও গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছে। এ সময় কমপক্ষে ৩ ব্যক্তি আহত হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।

untitled

জনরোষের হাত থেকে রক্ষা করতে পুলিশ ৪ রাইন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়তে বাধ্য হয়। ধৃতরা হলো পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার বেসচিক গ্রামের মৃত রাজ্জাকের ছেলে ফারুক(৪২), একই উপজেলার সোনাখালী গ্রামের ইউনুস মিয়ার ছেলে জুয়েল(৩০) ও গাজীপুরের জয়দেবপুর উপজেলার পশ্চিম এনায়েতপুরের সাইফুল ইসলামের ছেলে সাইদ হোসেন(২৫) ও বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার মহেষপুরের আজম আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর(৩৫)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,বুধবার বেলা ১টার দিকে উপজেলার আশ্রা বাজারের মেসার্স রিয়া ট্রেডার্স এর মালিক আনোয়ার হোসেন এনসিসি ব্যাংক মধুপুর শাখা থেকে ৬ লক্ষাধিক টাকা উত্তোলন করে মোটরসাইকেল যোগে ফিরছিলেন। পৌর শহরে সন্নিকটে টাঙ্গাইল মযমনসিংহ সড়কের বিপ্রবাড়ী এলাকা অতিক্রম করার পর বিএডিসি ফার্ম এলাকায় পৌঁছলে ডিবি পোষাকধারী ৬/৭ জনের একটি দল মাইক্রোবাস নিয়ে তার গতিরোধ করে। গাড়ি থেকে ৩ জন নেমে তাকে এলোপাতাড়ি পেটাতে শুরু করে। পরে তাকে মাইক্রোবাসে তুলে দ্রুত ময়মনসিংহের পথে স্থান ত্যাগ করে। এ দৃশ্য দেখে সন্দেহ হলে বিপ্রবাড়ীর আক্তার নামের জনৈক মোবাইল ফোনে জলছত্র বাজার এলাকায় খবর দেন। ওই বাজার ও বাজারাস্থ অরণখোলা পুলিশ ফাঁড়ি পার হওয়ার সময় জনতার বাধা অতিক্রম কালে ২ ব্যক্তি আহত হন। ছিনতাইকারীরা বাজার পার হয়ে বনের রাস্তা ধরে টেলকি এলাকায় গিয়ে আবারও জনতার বাধায় পড়ে। রফিক নামের এক ট্রাক ড্রাইভারের সাহসিকতায় পর পর ২ ছিনতাইকারিকে জনতা পুলিশ ধরে ফেলে। এদের একজন কে অরণখোলা পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে গেলে জনতা তাদের হেফাজতে নেয়ার চেষ্টা করে। উত্তেজিত জনতা বার বার পুলিশ ফাঁড়িতে ঢুকে পরার দৃশ্য দেখে পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুকতাদির আজিজ উপস্থিত হয়ে তাদের নিবৃত করার চেষ্টা করেন। জনতা এ এলাকায় সিরিজ ডাকাতির বিষয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে নির্লিপ্ততার অভিযোগ করেন। তারা রাতদিন ডাকাতি ছিনতাইয়ের ভয়ে জীবন যাপন করছেন উল্লেখ করেন। এ বিষয়ে ইউএনও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে জনগণ কিছুটা শান্ত হন।

ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির,এলাকার আবুল হাশেম জানান, এ সময় পুলিশ বন এলাকা থেকে আরও দুই ছিনতাইকারিকে নিয়ে উপস্থিত হলে জনতা পুলিশের গাড়ির উপর হামলে পড়লে উপায় না দেখে পুলিশ ৪/৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছঁড়ে।

তবে মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম ফাঁকা গুলির কথা অস্বীকার করে বলেন, মামলার প্রক্রিয়া চলছে এবং ছিনতাই হওয়া ৬ লাখ ১৫ হাজার টাকাও উদ্ধার হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য