ঢাকা বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৮

Mountain View



অসহায় এক পরিবারের পাশে আলোকিত মধুপুর

Print Friendly, PDF & Email

এস.এম.সবুজ, মধুপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধিঃ প্রথম মা-বাবা হওয়া এক অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে মধুপুরের “আলোকিত মধুপুর ফেইসবুক গ্রুপ” আবারও প্রমাণ করলো অবিরত আলো ছড়াতে তার গতি বাধাহীন।

সিটিহসপিটাল ত্যাগ করবার সময় নবজাতকসহ বাবা-মার পাশে (বা থেকে) প্রেসক্লাব সম্পাদক নাজমুছ সাদাৎ নোমান, গ্রুপের কোষাধ্যক্ষ জয়নাল আবেদীন এবং ডানে গ্রুপের সহ-সভাপতি এস.এম শহীদ

সিটিহসপিটাল ত্যাগ করবার সময় নবজাতকসহ বাবা-মার পাশে (বা থেকে) প্রেসক্লাব সম্পাদক নাজমুছ সাদাৎ নোমান, গ্রুপের কোষাধ্যক্ষ জয়নাল আবেদীন এবং ডানে গ্রুপের সহ-সভাপতি এস.এম শহীদ

পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার বাগদহশিকা গ্রামের সুখি দম্পতির নাম আলাতাফ রহমান এবং লুনা রহমান। জীবিকা নির্বাহের টানে আলতাফ সুপ্রীম সীড কোম্পানীর হয়ে ২০১৪ সাল থেকে টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার বোয়ালী গ্রামে বসবাস করছেন। ভাগ্যের বিড়ম্বনায় প্রথম বাবা হওয়ার প্রাক্কালে চাকরি হারান সুপ্রীম সীড কোম্পানী থেকে।

চাকরিহীন ১মাসের মাথায় গত ৮সেপ্টেম্বর স্ত্রী লুনা মা হবার যন্ত্রণায় কাতরাতে শুরু করেন। আলতাফ স্ত্রীকে নিয়ে আশায় বুক বেঁধে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রসূতি বিভাগে উপস্থিত হয়ে “ডাক্তার নেই” শুনে বজ্রাহত হন। উপায় না দেখে দিশেহারা হয়ে ভাড়া বাসার মালিকের স্ত্রীর সহযোগিতায় যোগাযোগ হয় আলোকিত মধুপুর ফেইসবুক গ্রুপের সদস্য এস.এম.সবুজ’র সাথে। সবুজ আলোকিত মধুপুর ফেইসবুক গ্রুপের সাথে বিষয়টি শেয়ার করলে গ্রুপ সংশ্লিষ্টরা আলতাফ দম্পতির পাশে এসে দাঁড়ান।

স্থানীয় সিটি হসপিটাল নামের প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করে ওই দিন রাতেই সিজারের ব্যবস্থা করেন গ্রুপ সংশ্লিষ্টরা। সিজারে লুনা একটি ফুটফুটে মেয়ে সন্তান প্রসব করেন। প্রসুতি সেবার পর গতকাল ১৩ সেপ্টেম্বর রবিবার দুপুরে আলোকিত পরিবার সিটি হসপিটালের বিল পরিশোধ করে ওই দম্পতিকে বাসায় পৌছিয়ে দেন।

পরবর্তী চিকিৎসা সেবায় স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও গ্রুপ মেম্বার সেলিম রানা ২হাজার ও মধুপুর প্রেসক্লাব সম্পাদক নাজমুস সাদাৎ নোমান পাঁচশত টাকা পরিবারের হাতে তুলে দেন। এই সহযোগিতায় অসহায় পরিবারটি আলোকিত মধুপুর ফেইসবুক গ্রুপ ও সিটি হসপিটাল কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে।

ফেসবুক মন্তব্য