ঢাকা মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

Mountain View



টাঙ্গাইলে সন্তান হওয়ার পর কিশোরী ধর্ষণের দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন, সন্তানের ব্যয়ভার বহন করার নির্দেশ

Print Friendly, PDF & Email

নিজস্ব প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলে ধর্ষণের দায়ে এক ব্যক্তির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও বিশ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড হয়েছে। বুধবার টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন বিশেষ ট্রাইবুনালের বিচারক শরিফ উদ্দিন আহমেদ এই রায় দেন। দণ্ডিত ব্যক্তির নাম চান মিয়া। তিনি গোপালপুর উপজেলার পাকুটিয়া উত্তরপাড়া গ্রামের মোকসেদ খানের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৮ সালের ২ আগস্ট দণ্ডিত চান মিয়া তাদের পাশের বাড়ির এক নারীকে ধর্ষণ করেন। পরে তাকে বিয়ের আশ্বাস দেন। নারীটি গর্ভবতী হয়ে পড়লে তিনি তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন। পরে ২০০৯ সালের ৬ এপ্রিল ধর্ষিতা নিজে মামলা দায়ের করেন। পরে তিনি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। আদালতের নির্দেশে ডিএনএ পরীক্ষা করে দণ্ডিত ব্যক্তির সন্তান বলে সনাক্ত করা হয়।

বিচারক কিশোরীর গর্ভে জন্ম নেওয়া কন্যাশিশুর বাবা হিসেবে দণ্ডিত চাঁন মিয়াকে রায় দেন। সেই সঙ্গে কন্যাশিশুটির বিয়ে না হওয়া পর্যন্ত তার সমস্ত ব্যয়ভার চাঁন মিয়াকে বহন করার আদেশ দেন। যদি ব্যয়ভার বহন না করে তবে জেলা প্রশাসনকে দন্ডিত ব্যক্তির সম্পদ বিক্রি করে ব্যয়ভার বহন করার আদেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিশেষ সরকারি কৌসুলী এ কে এম নাসিমুল আক্তার ও আব্দুল কদ্দুস। আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন আসাদুজ্জামান আইয়ুব।

ফেসবুক মন্তব্য