ঢাকা মঙ্গলবার, নভেম্বর ২০, ২০১৮

Mountain View



গোপালপুরে মাদক আটক করে প্রশাসনকে দিলেন যুবসমাজ

Print Friendly, PDF & Email

কে এম মিঠু, নিজস্ব সংবাদদাতা : টাঙ্গাইলের গোপালপুর পৌর শহরের ডুবাইলে এক মাদক ব্যাসায়ীর বাড়ি ঘেরাও করে বেশকিছু ইয়াবা এবং হিরোইনের পোটলা আটক করে প্রশাসনের হাতে তুলে দিলেন গ্রামের একদল সচেতন যুবক।

যুবসমাজের পক্ষে রফিকুল ইসলাম রনজু জানান, আমাদের গ্রামের পাড়ায়-পাড়ায় বেশকিছু দিন ধরে মাদক ব্যবসায়ীরা অবাধে মাদকের ব্যবসা করে আসছে। পুরুষদের পাশাপাশি মহিলা মাদক ব্যবসায়ীরাও ইয়াবা, গাজা ও হিরোইনের পুরিয়া নিয়ে রেডি থাকে নেশাখোর কাছে বিক্রি করতে। যার ফলে নেশার ছোবলে ধ্বংশ হয়ে যাচ্ছে এলাকার উঠতি বয়সের স্কুল কলেজ পড়–য়া তরুণসহ যুবসমাজ। সেই সাথে বেড়ে গিয়েছে বাসা বাড়িতে চোরের উপদ্রপসহ নানা রকমের অপরাধ।

News-Madok-Gopalpur-Tangail- 14.04 (1)

সচেতন যুব সমাজ

স্থানীয় প্রশাসনকে এ বিষয়ে জানানো হলেও তাদের তৎপরতা না দেখে আমরা গ্রামের কিছু যুবক মিলে গতকাল কাল রাত ৯টার দিকে বাবলু নামে এক স্থানীয় মাদকব্যবসায়ী বাড়ি ঘেরাও করলে আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে ঘরের ভেতর মাদক রেখেই পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় এক সাংবাদিকের পরামর্শে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি আবগত করলে পুলিশ প্রশাসনসহ তিনি ঘটনাস্থলে এসে মাদকগুলো জব্দ করে এবং উল্লেখযোগ্য মাদকব্যবসায়ীর নাম লিখে নিয়ে যায়।

নাম প্রকামে অনিচ্ছুক গ্রামের এক শিক্ষক জানান, গোপালপুর থানা পুলিশ ও মাদকবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যহত থাকলেও প্রতিদিনই এলাকায় বহিরাগত অনেক মাদকসেবীর আনাগোনা দেখা যায়। ডুবাইল বাজার, গাংগাপাড়াসহ এলাকার কিছু পাড়ায় ইয়াবা, হিরোইন, গাঁজা এবং মদ প্রকাশ্যে বিক্রি করে এবং বাড়তি কিছু টাকা নিয়ে মাদক ব্যবসায়ীর ঘরেই নেশা সেবনের জন্য নেশাখোরদের নিরাপদ আশ্রয় দেয়া হয়। সবাই এসব মাদক ব্যবসায়ীকে চিনলেও নিরাপত্তার অভাবে কেউ কিছু বলে না।

গোপালপুর থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল জলিল বলেন, এলাকার যুবসমাজ সোচ্চার হয়ে তারা যে কাজটি করেছে তা অবশ্যই প্রশংসনীয়। অচিরেই এই এলাকায় বড় আকারে একটি মাদক বিরোধী সেমিনার আয়োজন করে মাদকের কুফল ও মাদক ব্যবসা বন্ধে সবাইকে উদ্দোগী করা হবে।

ডুবাইল আদর্শ গণ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মাদক হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাসূমুর রহমান, গোপালপুর থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল জলিল, কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি অধ্যাপক বানীতোষ চক্রবর্তী, পৌর কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান প্রমুখ।

ফেসবুক মন্তব্য