ঢাকা শুক্রবার, এপ্রিল ২৭, ২০১৮

Mountain View



তৃণমুলের ভোটে জয়ী কিন্তু টাকার কাছে পরাজয়!

Print Friendly, PDF & Email

awami leagueনিজস্ব প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নে চুড়ান্ত তালিকায় ত্যাগী নেতা ও তৃণমুলে ভোটে বিজয়ী প্রার্থী বঞ্চিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তৃণমুলের ভোটে সর্বোচ্চ সমর্থন ও উপজেলা আহ্বায়ক নজরুল ইসলাম খান সামুর পূর্ণ সমর্থন পাওয়া সত্ত্বেও কেন্দ্রে পাঠানো তালিকায় নাম নেই ৭ নং দিগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ছানোয়ার হোসেন সাথিলের। এ ঘটনায় তৃণমুল নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, ষষ্ঠ ধাপে অনুষ্ঠিতব্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার দিগড় ইউনিয়নে আওয়ামালীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীদের মধ্য থেকে একক প্রার্থী নির্বাচন করার লক্ষ্যে তৃণমুলের নেতাকর্মীদের ভোটের আয়োজন করা হয়। গত ১৩ এপ্রিল হামিদপুরে অনুষ্ঠিত তৃণমুলের ভোটে ৬ জন প্রার্থীর মধ্যে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে ছানোয়ার হোসেন সাথিল একক প্রার্থী নির্বাচিত হয়। উপজেলা আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক, উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খান সামু কর্তৃক জেলা আওয়ামীলীগ বরাবর পাঠানো চিঠিতেও সাথিলকে মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়নের জন্য সুপারিশ করা হয়। কিন্তু কেন্দ্রে পাঠানো আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর চুড়ান্ত তালিকায় নাম নেই ছানোয়ার হোসেন সাথিলের। অভিযোগ উঠেছে, মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে তালিকায় নাম লিখিয়েছেন তৃণমুল ভোটে মাত্র ৪ ভোট পাওয়া প্রার্থী ইসমাইল হোসেন। এ ঘটনায় দিগড় ইউনিয়ন সহ উপজেলার আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

01-1

সরেজমিনে গিয়ে বিভিন্ন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি সেক্রেটারীর সাথে কথা বলে জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী নির্বাচনে তৃণমুলের নেতাকর্মী হিসেবে আমাদের ভোটদানের অধিকার দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। আমরা ভোট দিয়ে ছানোয়ার হোসেন সাথিলকে এককপ্রার্থী নির্বাচিত করেছি। কিন্তু জেলা আওয়ামীলীগ আমাদের সমর্থনকে টাকার বিনিময়ে  অগ্রাহ্য করেছে। বিষয়টা আমাদের জন্য লজ্জার। তৃণমুল নেতাকর্মীদের অবহেলা করলে নির্বাচনে নৌকার ভরাডুবি হলে এই দায়ভার জেলা আওয়ামীলীগকেই নিতে হবে। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করছি।

দিগড় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এসএম শাহজাহান মোল্লা বলেন, তৃণমুলের ভোটে সর্বাধিক সমর্থনে ছানোয়ার হোসেন সাথিলকে আমরা একক প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী বরাবর পাঠানো জেলা আওয়ামীলীগের চিঠিতে সাথিলের নাম নেই জেনে আমরা হতাশ হয়েছি। তৃণমুলের সমর্থনকে অগ্রাহ্য করা ঠিক হয়নি। জেলার নেতাকর্মীরা আমাদের ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও উপজেলা আওয়ামীলীগকে অবহেলা করেছে।

ছানোয়ার হোসেন সাথিল জানান, তৃণমুলের সমর্থনে জয়ী হয়েও টাকার কাছে হেরে গেছি। সর্বোচ্চ সমর্থন পাওয়া সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী বরাবর জেলা নেতৃবৃন্দের পাঠানো তালিকায় আমার নাম নেই। আমি আওয়ামীলীগের মাননীয় সভানেত্রী নিকট তৃণমুলের ভোটের মুল্যায়ন প্রত্যাশা করছি।

ফেসবুক মন্তব্য