ঢাকা শনিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৮

Mountain View



টাঙ্গাইল-৪ আসনে আ’লীগের সোহেল হাজারী জয়ী

Print Friendly, PDF & Email

নিজস্ব প্রতিনিধি, কালিহাতী : টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের উপনির্বাচন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

সোহেল হাজারী নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন এক লাখ ৯৩ হাজার ৫৪৭ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) ইমরুল কায়েস আম প্রতীকে পেয়েছেন এক হাজার ৬৯৬ ভোট। অপর প্রার্থী বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের (বিএনএফ) আতাউর রহমান খান (বড় ভাই) টেলিভিশন প্রতীকে পেয়েছেন এক হাজার ৩২০ ভোট।

13934942_291413984550051_8302398256527116045_n

উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। শতকরা ভোট প্রদানের হার ৬৪ দশমিক ৩৪ ভাগ। এই নির্বাচনে এক লাখ ৯৭ হাজার ৯৭৪ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এ নির্বাচনের ফলাফল নিশ্চিত করেছেন  উপ-নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম।

এদিকে কারচুপির অভিযোগে সকালে বল্লববাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রটি বাতিল করা হয়। বাতিলকৃত কেন্দ্রের ভোটের সংখ্যা ১৪১১। বাতিলকৃত ভোটের চেয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর ভোটের ব্যবধান বেশি হওয়ায় তাকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়।

এই আসনে ১৩টি ইউনিয়ন ও দুটি পৌরসভায় মোট ভোটার ৩ লাখ ৭ হাজার ১২ জন। ভোটকেন্দ্র ছিল ১০৭টি, ভোট কক্ষ ৬৬১টি, প্রিজাইডিং অফিসার ৬৬১জন এবং পোলিং এজেন্ট এক হাজার ৩৮৮জন।

কালিহাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখেরুজ্জমান জানান, নির্বাচনে সহিংসতা এড়াতে ও নির্বাচন সুষ্ঠ করতে বিপুল পরিমাণ পুলিশ, বিজিবি, আনসার মোতায়েন করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, বিগত ২০১৪ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থানরত টাঙ্গাইল সমিতি আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাবেক ডাক, টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী হজ ও তাবলিগ জামাত বিষয়ে বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েন। পরে তিনি দেশে ফিরে গ্রেফতার হন এবং জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর মন্ত্রী পরিষদ থেকে পদত্যাগ করেন। এরপর দল থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয় এবং সংসদ সচিবালয় ৩ সেপ্টেম্বর তার সংসদীয় আসনটি (টাঙ্গাইল-৪) শূন্য ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করে। পরে নির্বাচন কমিশন (ইসি) এ আসনে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে।

ওই শূন্য আসনে উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র জমা দেন আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর ভাই কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রধান আব্দুল কাদের সিদ্দিকী। তবে কাদের সিদ্দিকী ঋণ খেলাপি থাকায় রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামান ২০১৫ সালের ১৩ অক্টোবর তার মনোনয়নপত্র বাতিল বলে ঘোষণা করেন।

এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কাদের সিদ্দিকীর আপিল ওই বছরের ১৮ অক্টোবর ইসি খারিজ করে দেয়।

এরপর নির্বাচন কমিশনের মনোনয়নপত্র বাতিলের আদেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন কাদের সিদ্দিকী। ২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বৈধ নয় মর্মে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া সিদ্ধান্তই বহাল রাখেন হাইকোর্ট।

এরপর হাইকোটের আদেশের বিরুদ্ধে কাদের সিদ্দিকী লিভ টু আপিল করলে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ২০১৬ সালের ১৫ মার্চ সে আবেদন মঞ্জুর করেন। সেই আপিল শুনানি শেষে গত ১৮ জানুয়ারি কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল রাখেন সুপ্রিম কোটের আপিল বিভাগ।

পরে বাংলাদেশ নিবাচন কমিশন আগামী ৩১ জানুয়ারি মঙ্গলবার টাঙ্গাইল-৪ আসনের (কালিহাতী) উপ-নির্বাচনে ভোটগ্রহণ তারিখ ধার্য্য করেন।

ফেসবুক মন্তব্য