ঢাকা সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮

Mountain View



১০ ডিসেম্বর ঘাটাইল হানাদারমুক্ত দিবস, দিনব্যাপী অনুষ্ঠান কর্মসূচি

Print Friendly, PDF & Email
মোঃ আরিফ খান, ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) সংবাদদাতাঃ আজ ১০ ডিসেম্বর ঘাটাইল উপজেলা এই দিনে হানাদারমুক্ত হয়েছিল। ১৯৭১ সালের ৯ ডিসেম্বর দিবাগত রাত ১২ টা হতে ৫টি কোম্পানি কমান্ডারেরর নেতৃত্বে ও অন্যান্য সহযোগী মুক্তিযোদ্ধার বলিষ্ঠ ভূমিকায় লড়াই শুরু হয়।

এই দিনে কাদেরিয়া বাহিনীর নেতৃত্বে সম্মুখ যুদ্ধে ঘাটাইল মুক্ত হয় এবং বানিয়াপাড়া, ব্রাহ্মনশাসন, কালিদাসপাড়ায় তীব্র প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। হাবিবুর রহমান বীরবিক্রম এর নেতৃত্বে বানিয়াপাড়ায় প্রতিরোধ গড়ে তোলে, ঘাটাইলে রতনপুর এলাকা থেকে বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী বীরত্তোম, মুক্তিবাহিনীর কোম্পানি কমান্ডার চাঁন মিয়ার নেতৃত্বে কালিদাস পাড়া ও ব্রাহ্মন শাসন তীব্র লড়াই শুরু হলে পিছু হটতে থাকে  পাকহানাদার বাহিনী। ঐ দিন যুদ্ধে ৬ জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। এরা হচ্ছে-বানিয়াপাড়া যুদ্ধে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী, ব্রাহ্মন শাসন যুদ্ধে শহীদ হন মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন, আলী আকবর ও মানিক, কালিদাসপাড়া শহীদ হন মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান  ও আব্দুল আজিজ ঐ দিন খোরশেদ আলম ও ইউনুস আলীর নেতৃত্বে সম্মুখ যুদ্ধে বীরঘাটাইল-গুণগ্রাম ব্রীজের কাছে তীব্র লড়াই শুরু হলে ১৭ জন পাকসেনাসহ আলবদর রাজাকার অনেক অস্ত্রসহ ১’শর বেশি আটক করে। 

ঘাটাইল উপজেলা হানাদারমুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে আজ মঙ্গলবার মুক্তিযোদ্ধা সংসদের উদ্যোগে সারাদিন ব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। কর্মসূচীগুলির মধ্যে সূর্যোদয়ের সাথে উপজেলা চত্বরে ১০ বার তপোধ্বনি, সকাল নয়টায় শহীদ মিনার পুষ্পকস্তবক অর্পণ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতকা ও মুক্তিযোদ্ধা পতাকা উত্তোলন, বর্ণাঢ্য র‌্যালি, আলোচনাসভা। 
উক্ত কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন-মুক্তিযুদ্ধকালীন বেসামরিক প্রধান ১১নং সাব সেক্টরের আনোয়ারুল আলম, টাঙ্গাইল-৩ আসনের এমপি আমানুর রহমান খান রানা, প্রধান বক্তা নজরুল ইসলাম খান, উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মোহাম্মদ কামাল হোসেন, জিবিজি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শামসুল আলম মণি, বিআরডিবির চেয়ারম্যান আজমল হোসেন, ঘাটাইল মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হাবিবুর রহমান খান, মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন প্রমুখ। 

ফেসবুক মন্তব্য