ঢাকা বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৮

Mountain View



"৫ জানুয়ারি নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না " -ঘাটাইলের পথ সভায়, বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী

Print Friendly, PDF & Email
মোঃ আরিফ খান, ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) সংবাদাতা : আমি অভাগা মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আজও বেঁচে আছি। আমার মরে যাওয়ার উচিত ছিল। মুক্তিযুদ্ধের সময় আমি যাদের বয়স  ৫০/৫৫ দেখেছি তারা এখন বৃদ্ধ হয়েছে গেছে। আমি এখন সত্তুরে  পা রেখেছে তাও আমার কাজ শেষ হল না। মেয়ে লোকের শাসনে থেকে একটা দেশের পুরুষ আর পুরুষ থাকে! মা মরলেও হাসে বাপ মরলেও বিদেশে যায় এই দেশে তার হাসি ছাড়া কি আশা করা যায়।

গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীদের তিন মাস ব্যাপী পোলাও কোরমা খাওয়ানো হয়েছে আর শাপলা চত্বরে আলেমদের উপরে জালেম সরকার নির্বাবিচারে গুলি চালিয়েছে। তার বিচার করতে হবে। মহাজোটে পাঁচ বছর থেকে এরশাদ সকাল বেলায় জোট ছেড়ে বিকাল বেলায় সর্বদলীয় সরকারে যোগ দেয়। তিন দিন আগে সরকারে গেছেন তিন দিন পরে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছে। আজকে বলছে তিনবার ভোটে যামুনা ……….যামুনা। 
তিনি উপস্থিত জনগণের প্রশ্ন রাখেন এরশাদ আর হাসিনার মধ্যে কোন পার্থক্য আছে? হাসিনা শাড়ি পড়ে এরশাদও  পড়ে। পাঁচ বছর মহাজোটে ছিল সে হয় বিরোধী দল  তো আমিও গামছাওয়ালা বিরোধীদল। পরশু দিনই শেখ রেহেনার সাথে দেখা হল প্লেনে কত কথা হয়েছে। তিনি বলেন আপনি আমাদের বুকের মধ্যে আছেন আমি এটা স্বীকারও করি। আমি যাদের বুকের মাঝে থাকি তাদেরকে পুড়িয়ে মারলে তাহলে বুকের মাঝে থাকলাম কিভাবে। 
তিনি আরোও বলেন  আমার বড় ভাই আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী মন্ত্রী হয়েছেন গোপালগঞ্জের একজন পিয়নের সমানও তার দাম নেই। আমি এক হাজার বছর আ’লীগে থাকলেও সভাপতি বা বড় কোন নেতা হতে পারতাম না। ঘাটাইলে আমি যুদ্ধ করেছি আমার রক্ত ঝরেছে ঘাটাইলের মাটিতে ঘাটাইলের মানুষকে আমি হৃদয় দিয়ে ভালবাসি। তাই সুষ্ঠ, অবাধ নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য নির্বাচন করার লক্ষ্যে মাননীয় প্রধামন্ত্রী আপনি পদত্যাগ করুন। আসুন আমরা সকলে মিলে বসে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে আমরা দেশবাসীকে সুন্দর নির্বাচন উপহার দেই। তা না হলে যদি ৫ জানুয়ারি নির্বাচন হয় আমার টাঙ্গাইল জেলায় কোন প্রিজাইডিং অফিসারকে ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেওয়া  হবে না। 
তিনি বিরোধীদলের নেত্রীকে বলেন হরতাল অবরোধ করা ছেড়ে দিয়ে পনের দিনের জন্য দেশ আমার কাছে ছেড়ে দেন দেখি শেখ হাসিনা কিভাবে নির্বাচন করে। গতকাল বুধবার রাতে ঘাটাইল উপজেলার কলেজ মোড়ে পথসভায় কথাগুলো বলেন বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক জনতালীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী। 
ঘাটাইল উপজেলা কৃষক শ্রমিক জনতালীগের সভাপতি আব্দুল হালিম এর সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রিয় কৃষক শ্রমিক জনতালীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান খোকা (বীরপ্রতীক), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের অন্যতম সভাপতি এইচ.এম. আব্দুল হাই, জেলা সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের জেলা সহ সভাপতি ও বীরমুক্তিযোদ্ধা এ্যাডভোকেট মিয়া হাসান আলী রেজা, যুব আন্দোলনের ঘাটাইল উপজেলার আহবায়ক আতিকুর রহমান প্রমুখ।

ফেসবুক মন্তব্য