ঢাকা বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৮

Mountain View



কবি সুফিয়া কামালের ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

Print Friendly, PDF & Email
ডেস্ক রিপোর্ট : গণতন্ত্র এবং নারী মুক্তির বিকাশে আজীবন সংগ্রামী মহীয়সী নারী কবি বেগম সুফিয়া কামালের ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকী বুধবার। ১৯৯৯ সালের এই দিনে ৮৮ বছর বয়সে মারা যান এই বরেণ্য কবি ও সাহিত্যিক। তাঁকে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করা হয়। বাংলাদেশী নারীদের মধ্যে তিনিই প্রথম এই সম্মান লাভ করেন।

তিনি ছিলেন মানবতা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের পক্ষে এবং অন্যায়, দুর্নীতি ও অমানবিকতার বিরুদ্ধে সোচ্চার এক নারী নেত্রী। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি রাজনীতিবিদ, সাহিত্যিক ও সংস্কৃতিকর্মীদের অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন।
ভাষা আন্দোলনে তিনি নিজে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন এবং এতে অংশ নেয়ার জন্য অন্য নারীদের উদ্বুদ্ধ করেন। এছাড়া ৬৯ এর গণঅভ্যূত্থান আর ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধেও তিনি ছিলেন সক্রিয় কর্মী।
স্বাধীন বাংলাদেশে নারীজাগরণ আর সমঅধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে তিনি উজ্জ্বল ভূমিকা রেখে গেছেন। ১৯৯০ সালে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে শরিক হয়েছেন, কার্ফ্যু উপেক্ষা করে নীরব শোভাযাত্রা বের করেছেন। মুক্তবুদ্ধির পক্ষে এবং সাম্প্রদায়িকতা ও মৌলবাদের বিপক্ষে আমৃত্যু তিনি সংগ্রাম করেছেন। প্রতিটি প্রগতিশীল আন্দোলনে অংশ নিয়েছেন কবি সুফিয়া কামাল।
কবি সুফিয়া কামালের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে দেওয়া বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কবির আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দেশের মুক্তিযুদ্ধসহ সকল গণ আন্দোলন এবং শিক্ষা ও সংস্কৃতির বিকাশে তাঁর অবদানের কথা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন।
দিবসটি পালনে বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছে।
১৯১১ সালের ২০ জুন বরিশালের শায়েস্তাবাদের এক অভিজাত পরিবারে তাঁর জন্ম হয়। ১৯২৩ সালে সুফিয়া কামাল রচনা করেন তার প্রথম গল্প ‘সৈনিক বধূয়া’। ১৯২৬ সালে সওগাত পত্রিকায় তার প্রথম কবিতা ‘বাসন্তী’ প্রকাশিত হয়। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে সাঁঝের মায়া, একাত্তরের ডায়েরি, মোর যাদুদের সমাধি পরে, একালে আমাদের কাল, মায়া কাজল, কেয়ার কাঁটা ইত্যাদি।
১৯৬১ সালে পাকিস্তান সরকার তাঁকে জাতীয় পুরস্কার ‘তঘমা-ই-ইমতিয়াজ’ দেয়। কিন্তু ১৯৬৯ সালে বাঙালিদের ওপর অত্যাচারের প্রতিবাদে তিনি তা বর্জন করেন। 
এছাড়াও বাংলা একাডেমী পুরস্কার, একুশে পদক, নাসিরউদ্দীন স্বর্ণপদক, উইমেনস ফেডারেশন ফর ওয়ার্ল্ড পিস ক্রেস্ট, বেগম রোকেয়া পদক, দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ স্বর্ণপদক ও স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার লাভ করেন কবি সুফিয়া কামাল। তথ্যসূত্র : বাসস ও উইকিপিডিয়া

ফেসবুক মন্তব্য