ঢাকা শুক্রবার, মে ২৪, ২০১৯

Mountain View



আরেফিন রুমিকে কারাগারে প্রেরন

Print Friendly, PDF & Email
ডেস্ক রিপোর্ট: যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগে প্রথম স্ত্রী অনন্যাকে নির্যাতনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় কণ্ঠশিল্পী আরেফিন রুমিকে কারাগারে পাঠনোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সেই সাথে রুমির ভাই ইয়াসিন রনিকেও জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

শনিবার দুপুরে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুর রহমান এই নির্দেশ দেন। 

আদালত বাদী ও আসামি পক্ষের আইনজীবীদের বক্তব্য শুনে রুমির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
এর আগে শুক্রবার রাতে আরেফিন রুমির প্রথম স্ত্রী অনন্যা নির্যাতনের অভিযোগ এনে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে মোহাম্মদপুর কাঁটাসূরের কাদেরাবাদ হাউজিংয়ের বাসা থেকে আরেফিন রুমি ও তার ভাই ইয়াসিন রনিকে গ্রেপ্তার করে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ। 
শনিবার সকাল ৭টার দিকে মোহাম্মদপুর কাটাসুর এলাকায় কাজীরাবাদ হাউজিংয়ের একটি ভাড়া বাসা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক বলেন, শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে রুমির স্ত্রী অনন্যা শুক্রবার রাতে মামলা করেন। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।  
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ইসলাম জানান, বিয়ের দুই বছর পর রুমি অনন্যার পরিবারের কাছে ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। যৌতুক নিয়ে তাদের প্রতিদিন কথা কাটাকাটি হতো এবং রুমি অনন্যাকে নির্যাতন করতো। এমনকি অনন্যাকে ঠিকমতো ভরণপোষণ দিত না। এটি চাইতে গেলে অনন্যার ওপর নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যায়।
রুমির সঙ্গে লামিয়া ইসলাম অনন্যার ২০০৮ এর ১৭ এপ্রিল পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।
এসআই আমিনুল আরও জানান, ২০১২ সালের ২৪ অক্টোবর রুমি দ্বিতীয় বিয়ে করে। এ বিয়ের পর রুমি আরও ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে। অনন্যার ওপর নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়। শুক্রবার রাতে রুমি অনন্যাকে হাত-পা বেঁধে ব্যাপক মারধর করে। ওইখান থেকে কোনোভাবে ছাড়া পেয়ে অনন্যা মোহাম্মদপুর থানায় এসে মামলা করেন।
মামলায় রুমি, তার ভাই ও মা নাসিমা আক্তারকে আসামি করা হয়েছে। মামলার আরজিতে বলা হয়, অনন্যা মারাত্মক আহত হন।

ফেসবুক মন্তব্য