ঢাকা শনিবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৮

Mountain View



বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতার স্থান নেই -সুলতানা কামাল

Print Friendly, PDF & Email

কে এম মিঠু, গোপালপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি : বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতার স্থান নেই, একাত্তরের চেতনায় এদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সকলে মিলে দেশ স্বাধীন করেছি এদেশ সকলের। এদেশ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এগিয়ে যাবে। মুক্তিকামী মানুষের কখনো পরাজয় হয় না। যারা উপাসনালয়ে আগুন দিয়ে প্রতিমা পুড়িয়ে দেয়, সংখ্যালঘুদের উপর হামলা নির্যাতন চালায় তারা নরপশু, তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী, তাদের সঙ্গে কোন আপস নেই, তাদের রুখতে হবে সম্মিলিতভাবে- কথাগুলো বললেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা, আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী মুক্তিযোদ্ধা সুলতানা কামাল।

গত শনিবার সম্প্রতি টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার ১২০ বছরের প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী ফলদা কেন্দ্রীয় সর্বজনীন কালী মন্দিরে দুর্বৃত্তদের দ্বারা সংঘটিত অগ্নি সংযোগ, হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় সহমর্মিতা জানানোর লক্ষ্যে নাটমন্দিরে আয়োজিত সংহতি সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। তিনি এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে বলেন আমরা এ ঘটনায় লজ্জিত, ব্যথিত ও মর্মাহত। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই।

দৈনিক সংবাদের ভূঞাপুর প্রতিনিধি ও মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক সন্তোষ কুমার দত্তের সঞ্চালনায় সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি সরণ দত্ত। বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি এবং রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশ’ এর সদস্য জিয়াউদ্দিন তারেক আলী, রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশ’ এর অন্যতম সংগঠক ডা. সারোয়ার আলী, ভূঞাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হেলালুজ্জামান সরকার, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারেচ আলী মিঞা, সুজনের গোপালপুর উপজেলা শাখা সম্পাদক অধ্যাপক অমূল্য বৈদ্য, শিক্ষাবিদ ভরত চন্দ্র দাস, হিন্দু বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের ভূঞাপুর উপজেলা শাখার সভাপতি সুবোধ দত্ত, শিক্ষক সজল দত্ত, বিজয় সরকার প্রমুখ। আইন ও শালিস কেন্দ্রের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন মো. টিপু সুলতান, মোতাহার আকন্দ, আবু আহমেদ ফয়জুল কবীর প্রমুখ।

স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ এহেন ঘটনার নিরসনে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের উপাসনালয় ও জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করণে সরকারের প্রতি দাবী জানান। অনুষ্ঠানে দলমত, ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে বিভিন্ন পর্যায়ে সহস্রারাধিক ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।

ফেসবুক মন্তব্য