ঢাকা মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

Mountain View



ভূঞাপুরে শিক্ষক কর্তৃক ১১ ছাত্রীকে জোর করে চুমু দেয়ার ঘটনায় বিদ্যালয় ঘেরাও

Print Friendly, PDF & Email

downloadনিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার নিকলা উচ্চ বিদ্যালয়ের গনিত বিষয়ের সহকারি শিক্ষক আনন্দ চন্দ্র সরকার কর্তৃক ১১ ছাত্রীকে চুমু দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। প্রতিবাদে এলাকাবাসী গতকাল শনিবার দুপুরে বিদ্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শন এবং দোষী শিক্ষকের অপসারন ও শাস্তি দাবি করেন।

এলাকাবাসী জানায়,উপজেলার নিকলা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আনন্দ চন্দ্র সরকার মাস তিনেক আগে গনিত বিষয়ের শিক্ষক হিসেবে ওই বিদ্যালয়ে যোগ দেন। ঢাকার সাভার এলাকায় বাড়ি হওয়ায় চাকরির সুবাধে স্থানীয় চরনিকলা গ্রামের আব্দুল মজিদের বাড়িতে জায়গীর থাকতেন তিনি। ওই বাড়িতেই প্রাইভেট পড়াতেন নিজ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ১২ শিক্ষার্থীকে। এর মধ্যে ছিল ১১জন ছাত্রী ও ১জন ছাত্র। প্রাইভেট পড়ানোর সময় নানা ধরনের আপত্তিকর কথা বলতেন ওই শিক্ষক এবং তা বাইরে বলতে নিষেধ করে দিতেন। ১৫-২০দিন আগে শিক্ষক আনন্দ চন্দ্র সরকার প্রাইভেট পড়ানোর সময় পর্যায়ক্রমে ১১ ছাত্রীকে কপালে চুমু খায়। আদর করে কাজটি করা হয়েছে বলে তা সকলকে প্রকাশ করতে নিষেধ করে দেন। কয়েকদিন আগে ছাত্রীরা বিষয়টি তাদের অভিভাকসহ কয়েকজন সহপাঠিকে অবহিত করেন। প্রধানশিক্ষসহ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ ঘটনারা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালায়। এনিয়ে এলাকায় শুরু হয় আলোচনা –সমালোচনা। ছাত্রীদের চুমু দেয়ার ঘটনাটি অভিভাবকদের মাঝে ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী ও অভিভাবকরা শনিবার দুপুরে বিদ্যালয় ঘেরাও করে ওই লম্পট শিক্ষকের অপসারন ও শাস্তি দাবী করেন। বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি শাহজাহান মিঞা ও প্রধান শিক্ষক ওয়াজেদ আলী ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিলে বিদ্যারয় প্রাঙ্গন থেকে চলে যায় তারা।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক কয়েকজন অভিভাবক জানান, লম্পট শিক্ষক আনন্দ ছাত্রীদের শ্লীলতাহানী করে মহান শিক্ষকতার পেশাকে কলুষিত করেছে। তার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি হওয়া দরকার।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নিকলা উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মো.শাহজাহান মিঞা বলেন, এবিষয়ে পরিচালনা পর্ষদের সভা আহবান করে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রয়াজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.হেলালুজ্জামান সরকার বলেন, এধরনের ঘটনা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রয়াজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঢাকাটাইমস২৪.কম

ফেসবুক মন্তব্য