ঢাকা মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৩, ২০১৮

Mountain View



ভূঞাপুরে স্কুল ছাত্রী অপহরণের চেষ্টা, এলাকাবাসীর প্রতিরোধে ছাত্রী উদ্ধার, আটক ১

Print Friendly, PDF & Email

সোহেল তালুকদার : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলায় শুক্রবার সকালে ফলদা শরিফুন্নেছা বালিকা বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে অপহরণ করে পালানোর সময় এলাকাবাসীর প্রতিরোধে অপহৃত ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় ফলদা দিঘুলিয়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে অপহরণকারী আব্দুল খালেক (২৫) পুলিশ আটক করা হয়। এঘটনায় ওই ছাত্রীর পিতা নজরুল ইসলাম আব্দুল খালেককে প্রাধান আসামী করে ৩ জনের বিরুদ্বে ভূঞাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

জানাযায়, প্রতিদিনের মতো শুক্রবার সকালেও অপহৃত ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী ও তার বান্ধবি প্রাইভেট পড়ার জন্য বাড়ি থেকে হয়ে উপজেলার টেপিবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের বিএসসি শিক্ষক খাজা আহমেদ এর ফলদা বাজারস্থ বাসার কাছে পৌছালে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা ফলদা দিঘুলিয়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের বখাটে ছেলে আব্দুল খালেক তাদের গতি রোধ করে সিএনজি চালিত অটোরিক্সায় উঠানোর চেষ্টা করে। এসময় সাথে থকা বান্ধবী বাঁধা দিলে তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে ওই ছাত্রীকে টেনেহিচরে সিএনজি চালিত অটোরিক্সায় তোলে গোপালপুরের দিকে যেতে থাকে। অপহৃত ছাত্রী ও বান্ধবীর আর্ত চিৎকারে ফলদা বাজারে থাকা লোকজন ছুটে এসে অপহরণে ব্যবহৃত বাহনটির গতিরোধে ব্যর্থ হলে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকায় সতর্ক করে দেয়া হয়। পরে গোপালপুর উপজেলার মোমিনপুর বাজারের এলাকাবাসী রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে ছাত্রীটিকে উদ্ধার ও অপহরণকারী আব্দুল খালেককে আটক করতে পারলেও চালক দরবেশ পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। অপহরণকারী আব্দুল খালেককে ফলদা গ্রামের আবুল হোসেনের বাড়িতে রাখা হলে সকাল ১১ টার দিকে ভূূঞাপুর থানা পুলিশ খবর পেয়ে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এঘটনায় ওই ছাত্রীর পিতা নজরুল ইসলাম আব্দুল খালেককে প্রাধান আসামী করে নাঈম ও দরবেশের নামে ভূঞাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলা নং ১২।

ভূঞাপুর থানা ইনচার্জ হারেচ আলী মিঞা এঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ওই ছাত্রীর পিতা নজরুল ইসলাম আব্দুল খালেককে প্রাধান আসামী করে ৩ জনের বিরুদ্ধে ভূঞাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। অপর আসামীদের গ্রেপ্তারে জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।

ফেসবুক মন্তব্য