ঢাকা মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৩, ২০১৮

Mountain View



একদল তরুণ নির্মাতার গল্প

Print Friendly, PDF & Email

বিনোদন ডেস্ক : তারা একদল তরুণ নির্মাতা, স্বপ্ন সবার চলচ্চিত্র নির্মাণের, দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে চলচ্চিত্রের শিল্পে তুলে ধরতেই কাজ শুরু করেছেন। ‘স্টপ নট বাংলাদেশ’র উদ্যোগে প্রথমবারের মতো বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজনে করেছে “স্টপ নট গল্প চালাও ফিল্ম বানাও” স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রতিযোগিতা। গ্রে অ্যাডভার্টাইজিং ও কারখানা প্রোডাকশানের সহযোগিতায় ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণ নির্মাতারা বানিয়েছে ১০মিনিট দৈর্ঘ্যরে ১০টি সিনেমা। সিনেমাগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ১৮ই নভেম্বর থেকে মুক্তি দেয়া হয়েছে। চলচ্চিত্রগুলোতে অতিথি চরিত্রে দেখা যাবে মিশু সাব্বির, সুমন পাটোয়ারী, অর্পনা ঘোষ, স্বাগতা প্রমুখ অভিনয় শিল্পীদের। এসকল তরুণ নির্মাতাদের স্বপ্ন-ভাবনা আর চলচ্চিত্রের গল্পগুলো খন্ডাকারে তুলে ধরা হয়েছে। বিস্তারিত লিখেছেন আনিসুর সুমন

dhaka

ফখরুল আমান ফয়সাল, ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ
মুভি দেখতে ভালবাসেন, সেই সাথে গল্প নিয়ে ভাবতেও। হিন্দি ছবির পোকা। খেয়ালের বশে লিখে ফেলেন একান্ত গল্প ‘শেষের পরের চিঠি’। একটি দাম্পত্য জীবনের টানা পোড়েনের গল্প।

আর এ এহসান, স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি
সিনেমার নাম দিয়েছেন ‘এ ডায়েরি ফ্রম পাস্ট’। ছবি আকতে ঈয়ন্দ করেন, আর ছবি দেখেই আপন মনে ভাবেন নতুন নতুন ভাবনা গল্প। ডায়েরীর পাতায় ভাসা সাধারণ একটি কাহিনীকে তুলে ধরেছেন চলচ্চিত্রের দৃশ্যমান শিল্পে। ইরানী সিনেমার প্রতি বেশিই ঝোাঁক এহসানের।

ইয়াসিন সাফি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদের নিয়মিত সদস্য, চলচ্চিত্রকে বরাবরই একটু অন্যভাবে দেখতে পছন্দ করেন। সিনেমার নাম দিয়েছেন ‘মরণ ঢুলি’। স্বপ্ন প্রেম নির্মম ভাগ্য পরিহাস। গ্রামীণ জীবন পেক্ষাপটে প্রেম-বিরহের ছন্দে গল্প সজিয়েছেন। ভবিষ্যতে বড় দৈর্ঘ্যের সিনেমা বানানোর স্বপ্ন থেকেই নির্মাণ-যাত্রা সাফির।

আসিফ অনিক, সাউথ ইস্ট
পড়াশুনা ইংরেজি বিভাগে। নাস্তার টাকা বাচিয়ে চলচ্চিত্রে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন। সামজিক জীবনের টানা পোড়েন আর ভালবাসার গল্প থেকেই সিনেমার কাহিনী সাজানো হয়েছে। সিনেমার নাম দিয়েছেন আংটি রহস্য।

ইমন ফয়সাল, এআইইউবি
বাবা-মায়ের চাপে প্রকৌশলী বিভাগে পড়লেও সিনেমায় নেশা। ছিলেন সুযোগের অপেক্ষায়, আর তার বাস্তবতা পেলেন ‘এক কাপ চা’ নিসেমা নির্মানের মধ্যদিয়ে। চায়ের দোকান কেন্দ্র করে গল্প সাজিয়েছেন। চা খেতে খেতে নায়ক-নায়িকার ভাললাগা ভালবাসা, দ্বন্দকে তুলে ধরেছেন ধোয়া ওড়া চায়ের কাপে।

ইশিকা নাজমুন জুয়েনা, ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি
প্রতিযোগিতার একমাত্র নারী নির্মাতা। ট্রাফিক পুলিশের হাতনাড়া যান্ত্রিক জীবন আর পোশাকের আড়ালে থাকা মানুষটির মানবিক আবেদনকে ধারণ করেছেন আপন ক্যামেরা ফ্রেমে। সিনেমার নাম দিয়েছেন ‘ট্রাফিক ফোবিয়া’।

হাসান জোবায়ের, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি
মাল্টিমিডিয়া এন্ড ক্রিয়েটিভ টেকনোলজিতে পড়াশুনা করছেন। নির্মিত সিনেমার নাম ‘ফিরে এসো ফারিয়া’। রোমান্টিক ধাচ আর রহস্যজনক গল্পে নির্মাণ করেছেন সিনেমাটি। কল্পনায় আঁকা কোন একজন প্রেমিকের ভালবাসার মানুষের নাম নিয়ে উড়ে চলা ঘুড়ির পিছনে পিছনে ছুটে বেড়িয়েছেন এ তরুণ নির্মাতা।

হোসেন নাবিল, ইউআইইউ
ছোটবেলা থেকেই পারিবারিক সংস্কৃতিক গন্ডিতেই বড় হয়েছেন। সিনেমার নাম রেখেছেন জার্নি অফ এ ফ্লাওয়ার। সহজ-সরল একটি ছেলের আপন ভাবনায় লেখা চিঠি থেকেই গল্প সাজানো হয়েছে। স্বপ্ন সারাক্ষণ তার চলচ্চিত্রকে ঘিরেই।

আমিনুল ইসলাম, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
দুটি সমবয়সী শিশুর জীবনের সামাজিক স্তর থেকে গল্প লিখেছেন। একটি শিশু অভিজাত অন্যটি ফুটপাতের। বস্তিতে থাকা শিশুটির চোখে কংক্রিট দালানে থাকা ধনীর দুলালীর জীবনকে দেখাতে চেয়েছেন নির্মাতা আমিনুল।

ইব্রাহিম বিন মওদুদ, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়
সিনেমার নাম দিয়েছেন ‘মিলু আর কখনো সাইকেল হারায়নি’। মিলু সাইকেল হারালে তার মা তাকে বকাঝকা করে। এর পর মিলু আত্মহত্যা করতে যায়। এর পর ঘটে স্বপ্নময় ঘটনা। এক মৃত তরুণী তাকে মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচায়। মিলু ফিরে আসে জীবনের পথে। এভাবে গল্পটিকে টানা হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য