ঢাকা বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৮

Mountain View



ভূঞাপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে প্রকাশ্যে শ্লীলতাহানী, মামলা নিচ্ছে না পুলিশ!

Print Friendly, PDF & Email

Rape1

সোহেল তালুকদার, ভুঞাপুর : টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে মাদ্রসার এক ছাত্রীকে প্রকাশ্য দিবালোকে শ্লীলতাহানীর ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়েরের ৭ দিনেও পুলিশ তা নথিভুক্ত করেনি। বরং এ ঘটনাটিকে প্রেমঘটিত ব্যাপার বলে অজ্ঞাত কারনে পাশ কাটিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। এদিকে মামলা নথিভুক্ত না হওয়ায় চরম নিরাপ্তাহীনতায় ভুগছে শ্লীলতাহানীর শিকার ওই ছাত্রী ও তার পরিবার।

জানা যায়, উপজেলার রুহলী দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে মাদ্রাসায় যাওয়া-আসার পথে প্রেম নিবেদন ও নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল ওই মাদ্রাসারই দশম শ্রেণীর ছাত্র রুহুলী গ্রামের ঘেনা মিয়ার ছেলে হোসেন আলী। বিভিন্ন সময়ে ওই ছাত্রী বিষয়টি পরিবারের লোকজন ও মাদ্রাসার সুপার রাজ মাহমুদসহ অন্যান্য শিক্ষকদের অবহিত করেন। বেশ কয়েকবার গ্রাম্য সালিশে বখাটে হোসেন আলীকে সতর্ক করা হয়। প্রতিদিনের ন্যায় ১৭ মার্চ মঙ্গলবার সকালে ওই ছাত্রী প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফেরার পথে হোসেন আলী তার গতিরোধ করে হাত ও চুল ধরে টানাহেঁচড়া করে। এ সময় ছাত্রীর চিৎকারে লোকজন বের হয়ে আসলে বখাটে হোসেন আলী পালিয়ে যায়। পরে ওই দিনই শ্লীলতাহানীর শিকার ওই ছাত্রী ভূঞাপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। থানায় অভিযোগ দায়েরের ৭ দিনেও পুলিশ তা নথিভুক্ত করেনি। বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্য এলাকার প্রভাবশালী মহল মেয়ের পরিবারকে নানা ভাবে চাপ সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

শ্লীলতাহানীর শিকার ওই ছাত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলে, প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়াতেই আমার এ অবস্থা। আমি কেন অভিযোগ করলাম! অভিযোগ করার পর বিচার না পেয়ে উল্টো অপবাদ পেলাম। এর চেয়ে আত্মহত্যায় ভাল ছিল।

এ ব্যাপারে ভূঞাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আনোয়ারুল ইসলাম টাঙ্গাইল বার্তাকে বলেন, এ একটি অভিযোগ পেয়েছি। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে গোবিন্দাসী নৌ পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ তোফাজ্জল হোসেনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। তিনি আমাকে তদন্ত করে জানিয়েছেন এটি প্রেম ঘটিত ব্যপার। অভিযোগ সত্য নহে। তাহলে কেন মামলা নথিভুক্ত হবে ?

ভূঞাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. হেলালুজ্জামান সরকার বলেন, অভিযোগের ৭ দিনেও কোন ব্যবস্থা গ্রহন না করা দুঃখ জনক। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছি।

ফেসবুক মন্তব্য