ঢাকা বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৮

Mountain View



মির্জাপুরে ভূমিকম্পে বিআরডিবি অফিসে দেয়াল ও ছাঁদে ফাঁটল, বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশংকা

Print Friendly, PDF & Email

শাহ্ সৈকত মুন্না, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ ৮০’র দশকে নির্মিত টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিঃ (বিআরডিবি) অফিসের একতলা ভবনের চারদিকের দেয়াল ও ছাঁদে ফাঁটল দেখা দিয়েছে ভূমিকম্পের কারনে।

mirzapur

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে বসেই অফিসের ৪৬ জন সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারী তাদের দাপ্তরিক কাজ করছে। ঝুঁকিপূর্ণ ভবনটির ৪/৫ টি কক্ষ যে কোন সময় ধ্বসে পরে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে ঐ অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীরা অভিযোগ করেছেন। গতকাল বুধবার ঐ অফিসে গিয়ে দেখা গেছে ভবনের চারপাশের দেয়াল ও ছাঁদে ফাঁটল।

উপজেলা বিআরডিবির অফিস সুত্র জানায়, ৮০ দশকে মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন ও কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিঃ (বিআরডিবি) অফিসের একতলা ভবনটি নির্মিত হয়। অর্থনৈতিক সংকটসহ নানা জটিলতার কারনে দীর্গ দিনেও ভবনটির আর কোন মেরামত ও সংস্কার না হওয়ায় অত্যান্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পরেছে। এই অফিসের অধিনে মির্জাপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে ৩২৫টি সমিতির মাধ্যমে ১৫ হাজার ৭৩৩ জন অসহায় সমবায়ী সুবিধা ভোগ করে আসছে। গ্রামের অসহায় ও দরিদ্র নারী পুরুষ বিনা খরছে সরকারী ভাবে বিভিন্ন প্রকল্পের উপর প্রশিক্ষণ গ্রহণ ও সনদ পত্র নিয়ে সরকারী নানা সুযোগ সুবিধা পাচ্ছেন। এ ছাড়া মাইক্রেক্রেডিটের মাধ্যমে টাকা নিয়ে ব্যবসা করে লাভবান হচ্ছে। সমবায়ীদের সহযোগিতা করতে ৪৬ জন কর্মকর্তা কর্মচারী নিরলস ভাবে কাজ করে আসছে বলে বিআরডিবির ভাইস চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল জানিয়েছেন।

বর্তমানে অফিসটির ঝূঁকিপূর্ণ অবস্থার কারনে কর্মকর্তা কর্মচারীরা আতংকের মধ্যে ঠিকমত কাজ কর্ম করতে পারছে না ।

এ দিকে ভূমিকম্পে বিআরডিবির অফিসটির চারপাশের দেয়াল ও ভবন ফাঁটল দেখা দেওয়ায় কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে আতংক দেখা দিয়েছে। ছাঁদে ফাঁটল দেখা দেওয়ার ফলে বৃষ্টিতে পানি পরে গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র ভিজে নষ্ট হচ্ছে। এ ছাড়া ভবটি যে কোন সময় ধ্বসে পরে মারাত্বক দুর্ঘটনার ঘটতে পারে।

এ ব্যাপারে উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার (আরডিও) মিঃ গোপাল চন্দ্র সাহার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, শক্তিশালি ভূমিকম্পে ভবনের ৪/৫ টি কক্ষের দেয়াল ও ছাঁদ ফাঁটল দেখা দিয়েছে। ভবনটি এখন খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। যে কোন সময় ধ্বসে পরতে পারে। ভবনটি দ্রুত সংস্কারের প্রয়োজন।

ফেসবুক মন্তব্য