ঢাকা বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৮

Mountain View



ভূঞাপুরে যমুনার ভাঙন ঠেকাতে স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধ নির্মাণ

Print Friendly, PDF & Email

মুহা. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের অর্জুনা ইউনিয়নের অর্জুনা ও কুঠিবয়ড়া গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ সর্বগ্রাসী যমুনার ভাঙন ঠেকাতে গ্রাম দু’টি রক্ষায় স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধ নির্মাণ করছে। টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ড কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় স্থানীয় কয়েক শ’ মানুষ এ উদ্যোগ গ্রহন করেছে।

bhuiyanpur

জানা যায়, ভূঞাপুর উপজেলার অর্জুনা ইউনিয়নের প্রাচীন জনপদ অর্জুনা ও কুঠিবয়ড়া গ্রাম দু’টি গত কয়েক বছরে যমুনা নদীর ভাঙনে বিলীন হওয়ার পথে। ইতিমধ্যে গ্রাম দু’টির কয়েকশ’ পরিবার ঘরবাড়ি হারিয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। অথচ গ্রাম দু’টি রক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ড কার্যকর কোন পদক্ষেপ নেয়নি। গ্রাম দু’টির মানুষের আকুতি-মিনতি কানে পৌঁছেনি পানি উন্নয়ন বোর্ডের(পাউবো) কর্তাদের। যমুনায় পানি বাড়তে শুরু করায় ভাঙন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে ওই গ্রাম দু’টির কয়েক হাজার মানুষের মধ্যে। তারা পানি উন্নয়ন বোর্ডের দিকে তাকিয়ে না থেকে ভাঙন রোধে নিজেরাই স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বাঁধ নির্মাণ শুরু করেছে। আর এ কাজে অংশ নিয়েছে গ্রামের তরুণ-যুবক থেকে শুরু করে বৃদ্ধরা পর্যন্ত।

হাজী ইসমাইল খাঁ কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুছ ছাত্তার খান জানান, অর্জুনা গ্রামে অনেক লোকের জন্ম। যমুনার ভাঙনে গ্রামটি বিলীন হতে চলেছে। ভাঙন রোধে সরকারিভাবে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় এলাকাবাসী বাঁশ, চাটাই ও বালির বস্তা দিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বাঁধ নির্মাণ করছে।

অর্জুনা গ্রামের উদ্যোমী তরুণ মারুফ খান বলেন, যমুনার ভাঙন ঠেকাতে দ্রুত বাঁধ নির্মাণ জরুরি হয়ে পড়ায় অর্জুনা অন্বেষা পাঠাগারের উদ্যোগে ভাঙন ঠেকাতে স্বেচ্ছায় কাজ করছে এলাকার শতাধিক মানুষ। অন্যথায় প্রাচীন এই গ্রামসহ কয়েকটি শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে।

ভূঞাপুর উপজেলার অর্জুনায় নদী ভাঙন রোধের বিষয়ে টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহজাহান সিরাজ বলেন, এ ধরনের ভাঙন রোধে আমাদের কাছে কোন বরাদ্দ থাকে না। এমপি মহোদয় ডিও লেটার দিলে আমরা বরাদ্দের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট লিখতে পারি মাত্র।

ফেসবুক মন্তব্য