ঢাকা রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮

Mountain View



মির্জাপুরে বংশাই নদীর উপর নির্মাণাধীন ব্রিজের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে ॥ জুনেই খুলে দেওয়া হবে

Print Friendly, PDF & Email

শাহ্ সৈকত মুন্না,  মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি ঃ টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার উত্তরাঞ্চলবাসির দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হতে চলেছে। তাদের দীর্ঘ দিনের লালিত স্বপ্ন বংশাই নদীর উপর নির্মিত ব্রিজ আগামী জুনের শেষ দিকে খুলে দেওয়া হচ্ছে। বংশাই নদীর উপর নির্মিত (৩০০শ মিটার) এই বিজ্রের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে বলে উপজেলা প্রকৌশল অফিস (এলজিইডি) জানিয়েছে। গতকাল রবিবার উপজেলার বংশাই নদীর ত্রিমোহন এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে ব্রিজের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষের দিকে।

mirzapur

উপজেলা এলজিইডি অফিসের প্রকৌশলী মোঃ শামসুল আলম খান জানান, ২০১০ সালের এপ্রিলে বংশাই নদীর উপর ত্রিমোহন এলাকায় ৮ কোটি ৫ লাখ টাকা ব্যায়ে পাকা ব্রিজ নির্মানের জন্য দরপত্র আহবান করা হয়। ২০১০ সালের ১৩ জুন ব্রিজ নির্মানের কাজ শুরু হয়। কাজ শুরুর পর দফায় দফায় রড সিমেন্টসহ মালামালের দাম বৃদ্ধির কারনে মাঝপথে এসে ব্রিজ নির্মাণের কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে অনিশ্চিত হয়ে পরে বংশাই নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণের কাজ। টাঙ্গাইলের নির্বাহী প্রকৌশলী মোল্লা মিজানুর রহমান পর পর কয়েকবার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে ব্রিজের বন্ধ দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সরকারী নির্দেশে ব্রিজ নির্মানকারী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে মেসার্স সনি এন্ড নাভিলা ট্রেডার্সকে দরপত্র (চুক্তি) বাতিল করে ৫০ লাখ টাকা জরিমানা করেন। এরপর যোগাযোগ ও স্থানীয় মন্ত্রণালয় বিভাগের পরামর্শে ব্রিজ নির্মাণের জন্য পুনরায় দরপত্র আহবান করা হয়। দরপত্র আহবানের পর ২০১৪ সালে টাঙ্গাইলের থানাপাড়ার মেসার্স তাপস ট্রেডার্স নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বংশাই ব্রিজ নির্মাণের জন্য ৮ কোটি টাকার কাজ পান। ঐ প্রতিষ্ঠান কাজ পাওয়ার পর ২০১৪ সালের ৭ আগস্ট ব্রিজের কাজ দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য পুনরায় কাজ শুরু করেন। বংশাই নদীর উপর নির্মিতব্য ৩০০শ মিটার ব্রিজের বর্তমানে ৮৫ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে এবং বাকী ১৫ ভাগ কাজ এক মাসের মধ্যে সম্পন্ন হবে বলে ঠিকাদার মোঃ শরীফুল ইসলাম আবু সাইদ জানিয়েছেন। আগামী জুনের শেষের দিকে জনগনের চলাচলের জন্য ব্রিজ খূলে দেওয়া হবে বলে ঠিকাদার আশা করছেন।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মোল্লা মিজানুর রহমান এবং মির্জাপুর উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী মোঃ শামসুল আলম খানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বংশাই নদীর উপর নির্মিত ব্রিজ নির্মানের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে। স্থায়ীয় সংসদ সদস্য, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এবং প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় ব্রিজের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। অল্প দিনের মধ্যেই জনগনের চলাচলের জন্য ব্রিজটি খুলে দেওয়া হবে।

ফেসবুক মন্তব্য