ঢাকা রবিবার, আগস্ট ১৯, ২০১৮

Mountain View



এক্সপ্রেশনস অব আর্ট নামে গ্রুপ আর্ট এক্সিবিশন শুরু

Print Friendly, PDF & Email

Art-Exhibitionশিশির মল্লিকঃ এক্সপ্রেশন্স্ অব আর্ট নামে ভারত ও বাংলাদেশের শিল্পীদের গ্রুপ আর্ট এক্সিবিশন শুরু হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়নুল আর্ট গ্যালারিতে। গতকাল সন্ধ্যায় প্রদর্শনীর শুভ উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য ড. আ আ ম স  আরেফিন সিদ্দিকী। সভায় বিশেষ আতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শিল্পী চন্দ্র শেখর দে। উদ্বোধনী বক্তৃতায় শিল্পী চন্দ্র শেখর দে বলেন- ‘ভারত-বাংলাদেশের শিল্পীদের কাজের মধ্যে বিশেষ পার্থক্য নেই। তবে শিল্পীর পারিপার্শ্বিকতা ও তার সামাজিক পেশাগত অবস্থানের ছাপ তার কাজের মধ্যে বিদ্যমান থাকে। বুঝা যায় তার অবস্থান। আরো একটি বিষয় লক্ষনীয় যে শুধু ভারত বাংলাদেশ নয়, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভূটান, মালদ্বীপের শিল্পীদের মধ্যেও এই সাব-কন্টিনেন্টের পরিবেশ ঐতিহ্য ও কাজের সমন্বয় বা পরম্পরা লক্ষনীয়। যাতে দেশীয় কিংবা ইউরোপীয় ঘারানার ধারাবাহিকতা বিদ্যমান। এটা প্রায় ১০০ বছর ধরে চলে আসছে। এ থেকে আমরা বেরুতে পারছি না। অতএব আমাদের ভাবতে হবে। ভাবা উচিত। আমি যখন কোন একটি প্রদর্শনী দেখে বাসায় ফিরি তখন ভাবি আমি আসলে কি দেখলাম। যখন দেখি কিছুই পাইনি তখন সে প্রদর্শনী দেখার কোন অর্থ থাকে না। আমার মনে হয় শিল্পীদের আরো বেশি আন্তরিক হতে হবে। ভাবতে হবে কাজ নিয়ে ।’

006
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকী বলেন- ‘ভারত আর বাংলাদেশের শিল্পীদের কাজের মাধ্যমে যেমন আলাদা করা যাবে না তেমনি তাদের সাথে ভাষা শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতিতেও আলাদা করা যাবে না। ’৭১ সালে যে দেশ আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছিলো, রক্ত দিয়েছিলো আমাদের সহযোগিতা দিয়েছিলো তারা আমাদের আপনজন। সম্প্রতি ছিটমহল অবমুক্তকরণের মাধ্যমে এ সত্য আবারো প্রমাণিত হলো। ভবিষ্যতে তারা আরো এগিয়ে আসবেন দু’দেশের শিল্পীরা একসাথে কাজ করবেন আমরা এটাই আশা করি।’
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন প্রদর্শনী আয়োজনকারী সংগঠন আঁকিয়ের অন্যতম সংগঠক শিল্পী সুনীল কুমার। তিনি অংশগ্রহণকারী সব শিল্পীদের ধন্যবাদ জানান। উপস্থিত সকল দর্শক ও সহায়তাকারী সবাইকেও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। আরো বক্তব্য রাখেন ভারতের শিল্পী সীমা ঘোষ ভট্টাচার্য। সঞ্চালনা করেন শিল্পী নাজিয়া মাসুদ খান। অনুষ্ঠানে শিল্পী পরিবার, স্বজন ও দর্শকের উপস্থিতি ছিল বেশ লক্ষণীয়। প্রদর্শনীতে মোট ১৫ জন শিল্পী অংশগ্রহণ করেন তারা হলেন- বাংলাদেশের শিল্পী আনিসুজ্জামান মামুন, অসীম হালদার সাগর, মোঃ মেহেদী হাসান, নাজিয়া মাসুদ খান, পিযুষ কান্তি সরকার, প্রবাল কুমার সাহা, সাইফুল হক সদল, সুব্রত দাস, সুদীপ্ত মল্লিক সুইডেন, সুনীল কুমার, উত্তম কুমার তালুকদার এবং ভারতের শিল্পী গৌতম আচার্য, রিনা মুস্তাফী, শান্তনু ধর ও সীমা ঘোষ ভট্টাচার্য।
0007
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইন্সটিটিউট এর জয়নুল আর্ট গ্যালারিতে প্রদর্শনী চলবে আগামী ২১ মে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত। প্রদর্শনী প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। প্রদর্শনীটি আয়োজন করেছে আয়োজক সংগঠন আঁকিয়ে।

ফেসবুক মন্তব্য