ঢাকা মঙ্গলবার, নভেম্বর ২০, ২০১৮

Mountain View



মির্জাপুরে প্রধান শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম অভিযোগ, অবৈধ নিয়োগ বাতিলের দাবীতে মহাপরিচালক বরাবর লিখিত অভিযোগ

Print Friendly, PDF & Email

শাহ্ সৈকত মুন্না, মির্জাপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি : উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশ অমান্য করে অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে এক প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছে বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদ বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিপুল অংকের টাকার বিনিময়ে এই প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ায় এলাকায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অবৈধ ভাবে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বাতিলের দাবীতে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসির মধ্যে কয়েকজন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের মহাপরিচালক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।

এই ঘটনার পর এলাকায় তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের হাড়িয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে অবৈধভাবে এ প্রধান শিক্ষক নিয়োগ হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল শনিবার লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, গত ১৮ মে হাড়িয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ছিল। প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য ৭ জন প্রার্থী আবেদন করে। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ ফারুক হোসেন, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সবুর ও নিয়োগপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলীমসহ কয়েকজন প্রভাবশালী মহল যোগ সাজস করে কোরাম পুরনের জন্য তাদের পছন্দের আব্দুল আলীম, নন্দ দুলাল ও সেলিম খান এই তিনজন প্রার্থীকে পরীক্ষার জন্য সাক্ষাতকার পত্র দেন। অপর প্রার্থী এমারত হোসেন, তানিয়া খান, মামুনুর রশিদ ও মোস্তাফিজুর রহমানকে পরীক্ষায় অংশ গ্রহণের জন্য সাক্ষাতকার পত্র দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগে বলা হয়। গত ১৮ মে নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হলে এলাকাবাসি ও বঞ্চিত প্রধান শিক্ষক পদে প্রার্থীরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম আহমেদের কাছে অভিযোগ দেন। তাদের অভিযোগের পর নির্বাহী কর্মকর্তা নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত রাখার নির্দেশ দেন। মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে মাত্র ১০ মিনিট পরীক্ষা নিয়ে কোন মৌখিক পরীক্ষা ছাড়াই নিয়োগ বোড, ডিজির প্রতিনিধি মোঃ তোফাজ্জল হোসেন এবং মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ আব্দুস সবুর মিয়ার পুত্র মোঃ আব্দুল আলীমকে প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ দেন বলে লিখিত অভিযোগে বলা হয়। বিক্ষুব্দ এলাকাবাসি অবৈধ ভাবে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বাতিল এবং ঘটনার সাথে জরিত ব্যক্তিদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মুলক বিচারের দাবি জানায়।

লিখিত অভিযোগ মহাপরিচালক ছাড়াও স্থানীয় সংসদ সদস্য, চেয়ারম্যান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, পরিচালক ব্যানবেইজ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বরাবরও লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন হাড়িয়া গ্রামের শাহজাহান মিয়া ও সেলিম কাওসার।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মোঃ আব্দুস সবুর মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিভিন্ন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, প্রধান শিক্ষক নিয়োগে কোন প্রকার অনিয়ম ও দুর্নীতি হয়নি। বিধিমোতাবেক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক শিক্ষা অফিসার মোঃ জাকির হোসেন মোল্লার কাছে বিস্তারিত জানার জন্য যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, হাড়িয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের একটি অভিযোগ তিনি পেয়েছন। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

ফেসবুক মন্তব্য