,


রাজধানীতে অবিরাম বোমা হামলা, হরতালের আগেই শিবিরের নাশকতা শুরু

Print Friendly, PDF & Email
নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামীকাল রবিবার থেকে বিরোধি দল বিএনপি হরতালের ঘোষণা দিয়ে থাকলেও গাড়ি ভাঙচুর, ককটেল বিস্ফোরণ শুরু হয়েছে শনিবার সকাল থেকেই। পুলিশের দাবি, জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরাই রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় নাশকতা চালাচ্ছে। তবে তাদের নাশকতা ঠেকাতে সর্বোচ্চ সতর্ক রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজধানীর কাকরাইলের নাইটেঙ্গেল হোটেলের সামনে শনিবার সকালে তিনটি শক্তিশালী ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় পুলিশ কমপক্ষে ২০ জনকে আটক করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী নিজাম উদ্দিন জানান, শনিবার সকাল ১০ টার দিকে কাকরাইলের নাইটেঙ্গেল মোড়ে তিনটি শক্তিশালী ককটেল বিস্ফোরণ ঘটেছে। অপরদিকে মতিঝিল সিটি সেন্টারের সামনে একই সময়ে তিনটি শক্তিশালী ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে।
পল্টন মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম সরোয়ার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।
এদিকে, রাজধানীর তেজগাঁও এলাকায় ২টি এবং ফার্মগেটে একটি যাত্রীবাহী বাসে দুর্বৃত্তরা আগুন দেয়। এতে যাত্রীদের মধ্যে হুড়োহুড়ি শুরু হয়।
বনমন্ত্রী হাসান মাহমুদের বাসভবনের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে। এছাড়া ধানমন্ডিতে যুবলীগের কার্যালয়ে ও নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের বাসভবনের সামনে এবং মতিঝিলে পুলিশের ডিসি অফিসের সামনে ককটেলের বিস্ফোরণ হয়।
সাভারে দুইটি বাসে অগ্নিসংযোগসহ ইন্দিরা রোডে আইনমন্ত্রীর বাসভবনে বোমা হামলা করেছে দুর্বৃত্তরা। এছাড়াও মিডিয়াগুলো টার্গেট করে একের পর এক বোমা হামলা করছে। বেসরকারী টিভি চ্যানেল একাত্তর, মোহনা, দেশ টিভি সহ দৈনিক ভোরের কাগজের অফিসের সামনেও বোমা হামলা করেছে হরতাল সমর্থকরা। এসব ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে প্রায় ১০ জন।
এছাড়া রামপুরা টিভি ভবনের সামনে ও গুলশানের লিংক রোডে ককটেল বিস্ফোরিত হয়েছে। এর ফলে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
আজ সন্ধ্যায় রাজধানীর পল্টন খানায় দুটি হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সন্ধ্যায় সংঘটিত এ বোমা হামলায় একজন গুরুতর আহত হয়েছেন। তবে এখনো তাঁর পরিচয় পাওয়া যায়নি। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছে পুলিশ।  
এদিকে প্রধান নির্বাচন কমিশন এর বাসার সামনে ককটেল বিস্ফোরনও করেছে তারা। দয়াগঞ্জে আ.লীগ অফিসে আগুন দেয়াসহ দেশব্যাপী নাশকতা চালাচ্ছে হরতাল সমর্থনকারীরা। 

Comments

comments