,


রংপুরে কাদের সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

Print Friendly, PDF & Email
ডেস্ক রিপোর্ট: রংপুরে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে গ্রেফাতারী পরোয়ানা জারী করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী’র সম্পর্কে করুচিপূর্ণ, কুৎসিত, অশালীন ও মানহানিকর সাজানো গল্প বানিয়ে পত্রিকায় কলাম লেখার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় রংপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মনসুর আলম বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে  এ আদেশ জারি করেন।  আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কোষাধ্যাক্ষ এইচএন আশিকুর রহমান সম্পর্কে আশালীন মানহানিকর বক্তব্য সম্বলিত কলাম লেখারও অভিযোগও আনা হয়েছে কাদের সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে।

জানা যায়, রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আলী আকতার জাহাঙ্গীর হোসেন তুহিন অ্যাডভোকেট বাদী হয়ে গত ২৭ ফেরুয়ারি কাদের সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করেন। মামলায় আসামি কাদের ছিদ্দিকীকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারির আদেশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু আদালতের সমন পাওয়ার পরও তিনি আদালতে হাজির না হওয়ায় আদালত তার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।
মামলায় বাদী অভিযোগ করেছেন, কাদের সিদ্দিকী গত ১৯ ফেরুয়ারি দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকায় রাজাকারের উকিল নোটিশ শিরনামে কলামে লিখেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কোষাধাক্ষ্য এইচ এন আশিকুর রহমান এমপি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে টাঙ্গাইলের ডিসি হিসেবে কর্মরত থাকাকালে গ্রেপ্তার হন। যুদ্ধপরাধী হিসেবে তার ফাঁসি হওয়া উচিৎ ছিল বলে মিথ্যা বানোয়াট ও মানহানিকর কলাম লেখেন কাদের সিদ্দিকী। শুধু তাই নয় ওই পত্রিকায় তার লেখা কলামে এক পর্যায়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে যেসব কুরুচিপূর্ণ মিথ্যাচার করে এসব কথা বলেছেন তা শোভনীয় নয় বরং চরম মানহানিকর।
বাদীপক্ষে মামলা পরিচালনান করেন রংপুর আইনজীবী সমিতির সভাপতি আব্দুল হক প্রামাণিক অ্যাডভোকেট, পিপি আব্দুল মালেক অ্যাডভোকেট প্রমুখ।
এ ব্যাপারে পিপি আব্দুল মালেক বলেন, ‘মামলাটি ৭ মাস আগে দায়ের করা হলেও বিজ্ঞ বিচারক তাকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারির নির্দেশ দেন। এরপর কয়েকটি তারিখ ধার্য করা হলেও তিনি আদালতে হাজির হননি। ফলে বুধবার বিজ্ঞ বিচারক তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দিয়েছেন।’

Comments

comments