,


ভূঞাপুর ইউপি চেয়ারম্যান অপসারণ বিষয়ে আপিল সুপ্রীম কোর্টে খারিজ

Print Friendly, PDF & Email
মুহা.জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল: জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শামছুল হক তালুকদার ছানুর অপসারণে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন বাতিল করা হাইকোর্টের রুলের বিরুদ্ধে একই মন্ত্রণালয়ের আপিল আবেদন সুপ্রীম কোর্টের আপিলাত ডিভিশনের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ খারিজ করে দিয়েছেন। 
মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে প্রধান বিচারপতি মোজাম্মেল হোসেন, বিচারপতি শামসুদ্দিন হায়দার, বিচারপতি এম ওয়াহাব ও বিচারপতি এসকে সিনহার সমন্বয়ে গঠিত সুপ্রীম কোর্টের আপিলাত ডিভিশনের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ হাইকোর্টের দেয়া আদেশ পূণর্বহাল রেখে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের আপিল আবেদন খারিজ করে দেন। এতে, ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে শামছুল হক তালুকদার ছানু পরিষদের সকল কর্মকাণ্ড (অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডসহ) পরিচালনা করার বৈধতা পেলেন।
 
অপরদিকে, ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা আক্তার বাদী হয়ে শামছুল হক তালুকদারের বিরুদ্ধে গত ৬ জুন পরিষদের গাড়ি চুরির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় হাইকোর্টের বিচারপতি রেজাউল হক ও গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুরের সমন্বয়ে গঠিত ১৬নং বেঞ্চ অভিযুক্তদের রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ভূঞাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান শামছুল হক তালুকদার ছানু ও তার ভাই ফলদা ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান তালুকদার দুদুকে তিন মাসের আগাম জামিন দিয়েছেন।
 
জানাগেছে, রফিকুল ইসলাম ফরিদ নামে এক ঠিকাদার ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শামছুল হক তালুকদারের বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার বিভাগে একটি অনিয়মের অভিযোগ দায়ের করেন। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ২১ মে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে শামছুল হক তালুকদারকে ভূঞাপুর উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে অপসারণ করে। চেয়ারম্যান পদ শূন্য হওয়ায় প্যানেল চেয়ারম্যান-১ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা আক্তারকে অস্থায়ী চেয়ারম্যানের দায়িত্ব প্রদান করেন। ওই প্রজ্ঞাপনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে শামছুল হক তালুকদার হাই কোর্টে রিট করেন। রিটের রায়ে শামছুল হক তালুকদারের অপসারণাদেশ তিন মাসের জন্য স্থগিত করে স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনার সুযোগ প্রদানের নির্দেশ দিয়ে রুল জারি করা হয়। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় উল্লে¬খিত  আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলে চেম্বার জজে গত ৪ জুন শুনানির দিন ধার্য করা হয়। চেম্বার জজ আদালতের বিচারক শুনানিতে বিব্রত বোধ করে ফুল বেঞ্চে শুনানির জন্য স্থানান্তর করেন। ৯ জুন রবিবার হাইকোর্টের আপীল বিভাগের ফুল বেঞ্চে শুনানি অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও একই কারণে তা বাতিল করে সুপ্রীম কোর্টের আপিলাত বিভাগে বিষয়টি নিস্পত্তির জন্য স্থানান্তর করা হয়।
 
প্রকাশ, শামছুল হক তালুকদারকে চেয়ারম্যান পদে পূর্ণবহলের দাবিতে পৌর মেয়রসহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা উপজেলা পরিষদের সকল কর্মকান্ড থেকে বিরত রয়েছেন। ফলে উপজেলা পরিষদের স্বাভাবিক কার্যক্রমে বিঘ্নিত হচ্ছে। 
জনপ্রতিনিধিদের দাবি শামছুল হক তালুকদারকে চেয়ারম্যান পদে পূর্ণবহাল করা না হলে তারা পরিষদের কোন কর্মকান্ডে তারা অংশগ্রহণ  করবেন না।

Comments

comments